Image result for ‘যারা পল্টি পল্টি বলে মুখে ফেনা তুলছেন-ইকটু আয়নায় তাকান’

স্বৈরাচারীর বৈশিষ্ট্য নিয়ে স্ট্যাটাস দিয়ে পরে তা সংশোধন করেন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদের পুত্র তানজিম আহমেদ সোহেল তাজ। এরপর তাকে আরও বেশি সমালোচনার মুখে পড়তে হয়। তার স্ট্যাটাসটিতে আসতে থাকে একের পর এক বাজে মন্তব্য।

মঙ্গলবারের এ ঘটনার পর বুধবার এ ব্যাপারে নিজের অবস্থান পরিস্কার করলেন সোহেল তাজ। আজ সন্ধ্যায় ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন,

‘লাইফ লেসন:

যদি কোন বেক্তি আন্তরিক ভাবে সবার ভালোর জন্য অপ্রিয় সত্য কথা বলে তাহলে তাকে সবাই মিলে বুঝে না বুঝে তাদের পানচিং ব্যাগ বানিয়ে ফেলে I

Where ignorance is bliss, ‘tis folly to be wise. বোকার রাজ্যে ভাল কিছু বলার চেষ্টা করা হচ্ছে সবচে বড়ো বোকামি I

সবার কাছে মাফ চেয়ে সবার জন্য শুভ কামনা ও শুভেচ্ছা

প্রসঙ্গতঃ আমি আমার সব পোস্টই কম বেশি এডিট করি- যদি বানানে ভুল থাকে বা যদি কিছু অ্যাড করতে হয়

এডিট: আমি রাজনীতি করি না করতেও চাইনা- তাই আমি থোৱাই কেয়ার করি কে খুশি হল আর কে খুশি হল না I

এডিট: বাপ্ দেশ স্বাধীন করে জীবন দিল আর মা আওয়ামী লীগকে নতুন জীবন দিল আর অনেকে আমাকে আওয়ামী লীগ শিখাতে আসছেন? সাবধান- সূর্যের চে বালুর তাপ বেশি হলে তা কার জন্য মঙ্গল আনবে না

এডিট: আর যারা পল্টি পল্টি বলে মুখে ফেনা তুলছেন- ইকটু আয়নায় তাকান- আপনাদের সময় যে কি তাণ্ডব হয়েছিল সেটার আমি নিজে সাক্ষী I বোমাবাজি, ধর্ষণ, গুম, বিনা বিচারে হত্যা করা, ২১ অগাস্ট গ্রেনেড হামলা, কিবরিয়া, আহসানুল্লাহ সহ শত শত হত্যাকান্ড’

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার সকালে স্বৈরাচারী শাসনের নমুনা দিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন সোহেল তাজ। তিনি লিখেছিলেন,

‘বঙ্গবন্ধু এবং তাজউদ্দীন আহমদ এর হাতে গড়া সংগঠন আওয়ামী লীগ তার জন্ম লগ্ন থেকে গণমানুষের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে স্বৈরাচারী বিরোধী আন্দোলন করেছে এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতা এনেছে এই দেশের মানুষের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করার জন্য। পরবর্তীতে একই ধারায় আওয়ামীলীগ জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার প্রতিটি সংগ্রামের নেতৃত্ব দিয়েছে।

ইদানিং কালে আমরা অনেকেই স্বৈরাচারী শাসন কি তা হয়তো ভুলে গিয়েছি। নতুন প্রজন্মের জন্য ছোট্ট করে নিম্নে কিছু নমুনা দিলাম যাতে করে আমরা ভবিষ্যতে স্বৈরাচার কি তা চিহ্নিত করতে পারি। স্বৈরাচারী শাসন চেকলিস্ট:

১. যখন সাধারণ মানুষ তার মুক্ত চিন্তা ব্যাক্ত করতে ভয় পায়।

২. যখন দল, সরকার এবং রাষ্ট্র একাকার হয়ে যায় আর সরকারকে সমালোচনা করলে সেটাকে রাষ্ট্রদ্রোহিতা বলে আখ্যায়িত করা হয়।

৩. যখন দেশের প্রচলিত নানা আইন এবং নতুন নতুন আইন সৃষ্টি/তৈরি করে তার অপব্যবহার করে রিমান্ডে নেয়া এবং নির্যাতন করা হয়।

৪. বিনা বিচারে হত্যা ও গুম করে ফেলা হয়।

৫. রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান সমূহ কে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য ব্যবহার করা হয়।

৬. আইন শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী পুলিশ সহ অন্যন্য সংস্থাকে পেটোয়া বাহিনী হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

৭. যখন সাধারণ নাগরিক সহ সকলের কথা বার্তা, ফোন আলাপ, সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট মনিটর ও রেকর্ড করা হয়।

৮. যখন এই সমস্ত বিষয় রিপোর্ট না করার জন্য সংবাদমাধ্যম, সাংবাদিকদের গোয়েন্দা সংস্থা দিয়ে হুমকি দেয়া হয়।

পরে, সমালোচনার মুখে এদিন সন্ধ্যায় স্ট্যাটাসটি এডিট করে ‘এর প্রায় সবই ৪ দলীয় জোট সরকারের শাসনামলে আমার ব্যক্তিগত পর্যবেক্ষণ ও অভিজ্ঞতা থেকে।’ লাইনটি যুক্ত করেন তিনি। তবে তাতে সমালোচনার আগুন আরও উসকে দেয়। পোস্টের কমেন্টেও বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য আসতে থাকে।

© Copyright 2014-2018, All Rights Reserved ||| Powered By AnyNews24.Com || Developer By Abir-Group

%d bloggers like this:
www.scriptsell.net