স্ত্রী তানজিলা বেগমের পরকীয়া কিছুটা টের পেয়েছিলেন স্বামী অটোরিক্সা চালক সাইফুল। দীর্ঘদিন ধরেই স্ত্রীকে শাসন করছিলেন। তারপরেও পরকীয়া থেমে থাকেনি। এনিয়ে পারিবারিক কলহ লেগেই থাকত। হাতেনাতে ধরার অপেক্ষায় ছিলেন স্বামী। অবশেষে একই গ্রামের কলেজছাত্র জামাল মিয়ার সাথে স্ত্রীর অবৈধ মেলামেশার সময় দেখে ফেলেন স্বামী। এরপরই পাল্টে যায় চিত্র। স্বামীর সাথে ধস্তাধস্তি করে হত্যার চেষ্টা করে গৃহবধু ও পরকীয়া প্রেমিক। দুজনে মিলে স্বামী সাইফুলকে মারধর করে গরু বিক্রির টাকা নিয়ে চম্পট দিয়েছে।
বগুড়া সদর উপজেলার শেখেরকোলা ইউনিয়নের মহিষবাথান গ্রামে এঘটনা ঘটে। এবিষয়ে সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ কর হয়েছে।

অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মহিষবাথান গ্রামের আব্দুস সোবাহানের ছেলে অটোরিক্সা চালক সাইফুল ইসলামের স্ত্রী এক সন্তানের জননী তানজিলা বেগম (২৫) একই গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে কলেজছাত্র জামাল হোসেন সাথে দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে তোলে। গৃহবধু তানজিলা ও কলেজছাত্র জামাল দৌহিক সম্পর্ক স্থাপন করে আসছিল। স্বামী সাইফুল ইসলাম বিষয়টি কিছুটা বুঝতে পেরে স্ত্রীকে শাসন করে আসছিলেন।

গত সোমবার (১৬ জুলাই) সকাল ৯টার দিকে সাইফুল ইসলাম প্রতিদিনের ন্যায় বাড়ি থেকে বগুড়া শহরে অটোরিক্সা চালাতে যায়। এই সুযোগে তানজিলা বেগম তাঁর পরকীয়া প্রেমিক জামাল মিয়াকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে শয়ন ঘরে অবৈধ মেলামেশায় লিপ্ত হয়। স্বামী সাইফুল ইসলাম অটোরিক্সা চালাতে গিয়ে অসুস্থবোধ করলে সে সকাল ১১টায় বাড়িতে চলে আসে। এসময় ঘরের দরজা বন্ধ দেখতে পেয়ে স্ত্রীকে ডাকাডাকি করতে থাকে। স্ত্রীর সাড়া না পেয়ে দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকতেই অবাক হয়ে যায় স্বামী সাইফুল। ঘরের ভিতরেই গৃহবধু তানজিলা ও পরকীয়া প্রেমিক জামালকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন সাইফুল। এরপর প্রশ্ন করতেই পরকীয়া প্রেমিক ও গৃহবধু মিলে স্বামী সাইফুলকে মারধর করে হত্যার চেষ্টা করে।

পরে ধস্তাধস্তি করে সাইফুলের ঘরে থাকা গরু বিক্রির টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছে। ঘটনার পর থেকেই ওই গৃহবধু ও পরকীয়া প্রেমিক লাপাত্তা রয়েছে। ঘটনায় দিন বগুড়া সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন স্বামী সাইফুল। থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

© Copyright 2014-2018, All Rights Reserved ||| Powered By AnyNews24.Com || Developer By Abir-Group

%d bloggers like this:
www.scriptsell.net