(function (i,g,b,d,c) { i[g]=i[g]||function(){(i[g].q=i[g].q||[]).push(arguments)}; var s=d.createElement(b);s.async=true;s.src=c; var x=d.getElementsByTagName(b)[0]; x.parentNode.insertBefore(s, x); })(window,'gandrad','script',document,'//content.green-red.com/lib/display.js'); gandrad({siteid:4893,slot:52656});

READ  ওজন ও বিষণ্ণতা দূর করবে যে ১০ খাবার"/> প্রচণ্ড গরম, তাই বলে কি শরীরচর্চা বাদ যাবে? - AnyNews24.Com

প্রচণ্ড গরম, তাই বলে কি শরীরচর্চা বাদ যাবে? গরমেও চালু রাখতে হবে শরীর ঠিক রাখার নানা কৌশল। তবে গরমে ব্যায়াম করার ক্ষেত্রে কিছু সাবধানতা প্রয়োজন:
* গরমে, বিশেষ করে প্রখর রোদে বাইরে গিয়ে বেশি ব্যায়াম করবেন না। এ সময় ঘরে ফ্যান বা শীতাতপ নিয়ন্ত্রণযন্ত্র চালিয়ে কিংবা ব্যায়ামাগারে গিয়ে শরীরচর্চা করা ভালো। বারান্দা বা করিডরেও চলতে পারে ব্যায়াম।
* বাইরে ব্যায়াম করে ফিরেই খুব ঠান্ডা পানি পান করবেন না অথবা ঘর খুব শীতল করে ফেলবেন না। প্রথমে খোলা ঘরে ফ্যানের হাওয়ায় খানিকক্ষণ শরীর জুড়িয়ে নিন; স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি পান করুন কিংবা পানির সঙ্গে সামান্য ঠান্ডা পানি মিশিয়ে নিন।
* ব্যায়ামের সময় পানির বোতল কাছে রাখতে ভুলবেন না। ব্যায়ামের ফাঁকে এক-দুই ঢোক পানি পান করতে পারেন। কয়েক টুকরো ফলও খেতে পারেন, এতেও পানির চাহিদা মিটবে। তবে ভরপেট পানি বা ফল খেয়ে নিলে ব্যায়াম চালিয়ে যেতে অস্বস্তি হবে।
* দুপুরের রোদে বা বেশি গরম আবহাওয়ায় ব্যায়াম করবেন না। ভোরবেলা, শেষ বিকেল বা সন্ধ্যার সময়টা বেছে নিন।
* ভারী, আঁটসাঁট পোশাক বা কালো রঙের পোশাক পরে ব্যায়াম করবেন না। এতে গরম বেশি লাগবে এবং অস্বস্তি হবে। ঢিলেঢালা, হালকা, সুতি পোশাকে ব্যায়াম করুন।
* এ সময় খুব ভারী ব্যায়াম না করাই ভালো। ব্যায়াম শুরু করার পর খেয়াল করুন, পরিবেশের তাপমাত্রার সঙ্গে শরীর মানিয়ে নিতে পারছে কি না। ধীরে ধীরে ব্যায়ামের গতি বাড়ান।
* ব্যায়াম করার সময় দুর্বল লাগলে, মাথা ঘুরলে, বুক ধড়ফড় করলে, হাঁপ ধরে গেলে, মাংসপেশিতে ব্যথা এবং বমি বা বমি ভাব হলে ব্যায়াম থামিয়ে বিশ্রাম নিন।
ফিজিক্যাল মেডিসিন ও রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল

প্রচণ্ড গরম, তাই বলে কি শরীরচর্চা বাদ যাবে? গরমেও চালু রাখতে হবে শরীর ঠিক রাখার নানা কৌশল। তবে গরমে ব্যায়াম করার ক্ষেত্রে কিছু সাবধানতা প্রয়োজন:
* গরমে, বিশেষ করে প্রখর রোদে বাইরে গিয়ে বেশি ব্যায়াম করবেন না। এ সময় ঘরে ফ্যান বা শীতাতপ নিয়ন্ত্রণযন্ত্র চালিয়ে কিংবা ব্যায়ামাগারে গিয়ে শরীরচর্চা করা ভালো। বারান্দা বা করিডরেও চলতে পারে ব্যায়াম।
* বাইরে ব্যায়াম করে ফিরেই খুব ঠান্ডা পানি পান করবেন না অথবা ঘর খুব শীতল করে ফেলবেন না। প্রথমে খোলা ঘরে ফ্যানের হাওয়ায় খানিকক্ষণ শরীর জুড়িয়ে নিন; স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি পান করুন কিংবা পানির সঙ্গে সামান্য ঠান্ডা পানি মিশিয়ে নিন।
* ব্যায়ামের সময় পানির বোতল কাছে রাখতে ভুলবেন না। ব্যায়ামের ফাঁকে এক-দুই ঢোক পানি পান করতে পারেন। কয়েক টুকরো ফলও খেতে পারেন, এতেও পানির চাহিদা মিটবে। তবে ভরপেট পানি বা ফল খেয়ে নিলে ব্যায়াম চালিয়ে যেতে অস্বস্তি হবে।
* দুপুরের রোদে বা বেশি গরম আবহাওয়ায় ব্যায়াম করবেন না। ভোরবেলা, শেষ বিকেল বা সন্ধ্যার সময়টা বেছে নিন।
* ভারী, আঁটসাঁট পোশাক বা কালো রঙের পোশাক পরে ব্যায়াম করবেন না। এতে গরম বেশি লাগবে এবং অস্বস্তি হবে। ঢিলেঢালা, হালকা, সুতি পোশাকে ব্যায়াম করুন।
* এ সময় খুব ভারী ব্যায়াম না করাই ভালো। ব্যায়াম শুরু করার পর খেয়াল করুন, পরিবেশের তাপমাত্রার সঙ্গে শরীর মানিয়ে নিতে পারছে কি না। ধীরে ধীরে ব্যায়ামের গতি বাড়ান।
* ব্যায়াম করার সময় দুর্বল লাগলে, মাথা ঘুরলে, বুক ধড়ফড় করলে, হাঁপ ধরে গেলে, মাংসপেশিতে ব্যথা এবং বমি বা বমি ভাব হলে ব্যায়াম থামিয়ে বিশ্রাম নিন।
ফিজিক্যাল মেডিসিন ও রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল

About the author

Related Articles

Leave a Reply

2014 Powered By Wordpress, Goodnews Theme By Momizat Team

%d bloggers like this: