তুরস্কের ক্ষতি হলে সকল মুসলিম ক্ষতিগ্রস্থ হবে : সৌদি গ্র্যান্ড মুফতি

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সৌদি গ্র্যান্ড মুফতির একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। টেলিভিশন প্রোগ্রামে তিনি একটি বড় ইসলামি দেশ-হিসেবে তুরস্কের মর্যাদা তুলে ধরেন। সাথেসাথে তা হারিয়ে ফেললে মুসলমানদের কী ধরণের ক্ষতি হবে তা নিয়ে আলোচনা করেন।

শায়েখ আব্দুল আযীয বিন আব্দুল্লাহ বলেন,“তুরস্ক একটি বড় ইসলামী রাষ্ট্র। তুরস্ক যদি ক্ষতিগ্রস্থ হয় , তবে তা পুরো মুসলিম জাতির জন্য ক্ষতি।

তিনি বলেন, এ মহান দূর্গকে যদি সাহায্য করা না হয় , তুর্কিরা যদি দূঢ়পদ না থাকে ,যদি তাদের সহযোগিতা করা না হয় এবং তুরস্ক ক্ষতিগ্রস্থ হয় তবে তার নেতিবাচক প্রভাব সকল মুসলমানের জীবনের ওপর পড়বে।”

শায়েখ আব্দুল আযীয বিন আব্দুল্লাহের ভিডিওয়ের ওপর কুয়েতের সংসদ সদস্য মুহাম্মাদ হায়েফ আল মাতিরী টুইট করে বলেন, ‘তুরস্ককে সাহায্য করুন তাহলে আপনার জাতি বিজয়ী হবে, কোন মুসলিম দেশকে ক্ষতিগ্রস্থ করার জন্য যে কোন হামলা পুরা মুসলিমদের ওপর যুদ্ধ করার শামিল। কারণ, সকল মুসলিম ভাই ভাই।

কুয়েতী এই সাংসদ আরো বলেন, ইতোপূর্বেও সৌদির প্রধান মুফতি তুরস্ককে সহযোগিতার ব্যাপারে কথা বলেছেন। তিনি আল্লাহর কাছে তুরস্কের জন্য সাহায্য প্রার্থণা করে বলেন, হে আল্লাহ তুরস্ককে সকল খারাপী হতে হেফাজত করো।”

ব্যবসার হিসাব নিকাশ এখন হাতের মুঠোয়- ক্লিক

সৌদি আরবের প্রধান মুফতির এ বক্তব্য এমন সময় এলো ,যখন তুরস্ক আমেরিকাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক শক্তির পক্ষ হতে অর্থনৈতিক যুদ্ধ মোকাবেলা করছে, যার কারণে তুর্কি মুদ্রার মান হ্রাস পেয়ে দেশে মুদ্রাস্ফিতির মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। যদিও ইতোমধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তুর্কি মুদ্রার সমর্থণে ব্যাপক প্রচারণার ফলে তুর্কি লিরা এখন উর্দ্ধমুখী।

গত ১০ আগস্টে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তুর্কি রড ও এ্যালমুনিয়ামের ওপর আমদানী শুল্ক বাড়ানোর ঘোষণা দেন। তুরস্ক কথিত মার্কিন ধর্মযাজকের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস ও গোয়েন্দাবৃত্তির অভিযোগে বিচার করার পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাম্প তুরস্কের স্বরাষ্ট ও বিচার মন্ত্রীর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

এর বিপরীতে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান মার্কিন পণ্যের ওপর আমদানী শুল্ক বাড়ানোর পাশাপাশি বিভিন্ন পণ্য বয়কটের ঘোষণা দিয়ে বলেন, ‘তার দেশ কোন হুমকির কাছে মাধা নত করবেনা, তার দেশ সকল সম্ভাব্য সকল অর্থনৈতিক পরিস্থিতির জন্য প্রস্তত। তিনি জোর দিয়ে বলেন, ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্ত আমেরিকার স্বার্থ ক্ষুণ্ণ করবে।’

সূত্র: তুর্কপ্রেস


Leave a Reply

%d bloggers like this: