সাকিবকে হাসির পাত্র বানাতে আনন্দবাজার গোষ্ঠীর নীতিহীন সংবাদ!

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ বনাম ভারতের কোনো সিরিজ বা ম্যাচ নেই। নিকট ভবিষ্যতেও নেই।

ভারতের নাম জড়িয়ে নতুন কোনো খবরও বাংলাদেশের ক্রিকেটে আসেনি। কিন্তু এর মধ্যেই দুই দেশের অনলাইন সরগরম কথার লড়াইয়ে!  দুই দেশের ম্যাচ থাকলে যেভাবে সমর্থকরা কথার লড়াইয়ে নেমে পড়েন তেমনি কথ্য-অকথ্য কথা চালাচালি হচ্ছে অনলাইনে। কিন্তু হঠাৎ করে এমন কী হলো যার জন্য দুই দেশের সমর্থকরা লড়াইয়ে নামলেন?ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে দেখা যায় গত দুই দিন আগে ভারতের একটি সংবাদমাধ্যমে বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে নিয়ে সংবাদের কারণেই এই ঝামেলের সৃষ্টি। দেশের কোনো একটি পত্রিকায় দেওয়া সাক্ষাতকারে সাকিব বলেছিলেন অজিদের হারাতে হলে ভারতকে কী করতে হবে- সেই বিষয়ে। এই সাধারণ খবরটি বিকৃত করে এবেলা নামক ওই ভারতীয় পত্রিকাটি গত ২২ আগস্ট ‘বিশ্বের একনম্বর দলকে ‘পরামর্শ’ দিয়ে হাসির খোরাক সাকিব, আপনিও হাসবেন’ শিরোনামে অদ্ভুত একটি নিউজ প্রকাশ করে!

নিউজটির পরতে পরতে ছিল বিশ্বের এক নম্বর অল-রাউন্ডারকে নিয়ে হাসাহাসি! এই ঘটনার পর থেকেই মূলতঃ দুই দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে নতুন করে ঝামেলার সৃষ্টি। দেশের সেরা ক্রিকেটারকে এভাবে ট্রল করা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না ভক্তরা। নিউজটিতে একটি তথ্যগত ভুলও আছে। ভারত এই মুহূর্তে ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ের ২ নম্বরে অবস্থান করছে। ১ নম্বরে আছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

ভারতীয় দৈনিকটি এই সাধারণ তথ্যটিও জানে না!এবিপি প্রাইভেট লিমিটেডের মালিকানাধীন এবেলা নামক ওই দৈনিকটি সবসময় এমন বিদ্বেষমূলক খবর প্রকাশ করে থাকে। মূল ঘটনাকে বিকৃত করে অধিক হিটের আশায় এমন কাজ করে তারা। যেমন গত ১৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট সিরিজ নিয়ে ‘অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে ঘৃণ্য চক্রান্ত করেছিল বাংলাদেশ, ফাঁস হয়ে গেল এবার’ শিরোনামে একটি নিউজ করে পত্রিকাটি। আসল ঘটনা ছিল মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামের উইকেটকে ‘বাজে’ মন্তব্য করে বিসিবিকে শোকজ করেছিল আইসিসি। বিসিবি তার জবাবও দিয়েছে।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের শুরুতে ভারত-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজে এমন ঘটনা ঘটেছিল। ওই সিরিজের প্রথম টেস্টটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল পুনেতে। জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। তবে পুনের উইকেটকে ‘খুব বাজে’ আখ্যা দিয়ে ভারতকে শোকজ করেছিল আইসিসি। এবেলা ওই ঘটনাটি এভাবে চেপে গেল কেন? প্রশ্নটির সম্ভবত কোনো জবাব নেই!

সাকিবকে নিয়ে ওই নিউজটি করার পর দুই দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে ‘সাইবার লড়াই’ শুরু হয়। একে অপরকে যুক্তিপূর্ণ কথা থেকে শুরু করে কুৎসিত গালি পর্যন্ত প্রদান করেন। এছাড়া শুরু হয় ছবি বিকৃতি করে ট্রল করা। কিন্তু থেমে যায়নি এবেলা। আজ ২৪ সেপ্টেম্বর রবিবার আবারও বিদ্বেষমূলক একটি নিউজ ছাপায় সাইটটি। শিরোনামে দেওয়া হয় ‘কোহলিকে আবারও চরম অসম্মান, এবার সব মাত্রা ছাড়াল বাংলাদেশিরা’

স্রেফ দর্শক-সমর্থকদের পারস্পরিক কথাবার্তার ওপর নির্ভর করে এভাবে বিদ্বেষ ছড়ানোটা গ্রহণ করতে পারছেন না সচেতন মহল। এই বিদ্বেষ ছড়ানোর পেছনে আনন্দবাজার গোষ্ঠীর এই পত্রিকাটির আরও খারাপ কোনো উদ্দেশ্য লুকিয়ে আছে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন দুই দেশের সচেতন ক্রিকেটপ্রেমীরা।

সাকিবকে হাসির পাত্র বানাতে আনন্দবাজার গোষ্ঠীর নীতিহীন সংবাদ!

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ বনাম ভারতের কোনো সিরিজ বা ম্যাচ নেই। নিকট ভবিষ্যতেও নেই।

ভারতের নাম জড়িয়ে নতুন কোনো খবরও বাংলাদেশের ক্রিকেটে আসেনি। কিন্তু এর মধ্যেই দুই দেশের অনলাইন সরগরম কথার লড়াইয়ে!  দুই দেশের ম্যাচ থাকলে যেভাবে সমর্থকরা কথার লড়াইয়ে নেমে পড়েন তেমনি কথ্য-অকথ্য কথা চালাচালি হচ্ছে অনলাইনে। কিন্তু হঠাৎ করে এমন কী হলো যার জন্য দুই দেশের সমর্থকরা লড়াইয়ে নামলেন?ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে দেখা যায় গত দুই দিন আগে ভারতের একটি সংবাদমাধ্যমে বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে নিয়ে সংবাদের কারণেই এই ঝামেলের সৃষ্টি। দেশের কোনো একটি পত্রিকায় দেওয়া সাক্ষাতকারে সাকিব বলেছিলেন অজিদের হারাতে হলে ভারতকে কী করতে হবে- সেই বিষয়ে। এই সাধারণ খবরটি বিকৃত করে এবেলা নামক ওই ভারতীয় পত্রিকাটি গত ২২ আগস্ট ‘বিশ্বের একনম্বর দলকে ‘পরামর্শ’ দিয়ে হাসির খোরাক সাকিব, আপনিও হাসবেন’ শিরোনামে অদ্ভুত একটি নিউজ প্রকাশ করে!

নিউজটির পরতে পরতে ছিল বিশ্বের এক নম্বর অল-রাউন্ডারকে নিয়ে হাসাহাসি! এই ঘটনার পর থেকেই মূলতঃ দুই দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে নতুন করে ঝামেলার সৃষ্টি। দেশের সেরা ক্রিকেটারকে এভাবে ট্রল করা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না ভক্তরা। নিউজটিতে একটি তথ্যগত ভুলও আছে। ভারত এই মুহূর্তে ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ের ২ নম্বরে অবস্থান করছে। ১ নম্বরে আছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

ভারতীয় দৈনিকটি এই সাধারণ তথ্যটিও জানে না!এবিপি প্রাইভেট লিমিটেডের মালিকানাধীন এবেলা নামক ওই দৈনিকটি সবসময় এমন বিদ্বেষমূলক খবর প্রকাশ করে থাকে। মূল ঘটনাকে বিকৃত করে অধিক হিটের আশায় এমন কাজ করে তারা। যেমন গত ১৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট সিরিজ নিয়ে ‘অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে ঘৃণ্য চক্রান্ত করেছিল বাংলাদেশ, ফাঁস হয়ে গেল এবার’ শিরোনামে একটি নিউজ করে পত্রিকাটি। আসল ঘটনা ছিল মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামের উইকেটকে ‘বাজে’ মন্তব্য করে বিসিবিকে শোকজ করেছিল আইসিসি। বিসিবি তার জবাবও দিয়েছে।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের শুরুতে ভারত-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজে এমন ঘটনা ঘটেছিল। ওই সিরিজের প্রথম টেস্টটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল পুনেতে। জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। তবে পুনের উইকেটকে ‘খুব বাজে’ আখ্যা দিয়ে ভারতকে শোকজ করেছিল আইসিসি। এবেলা ওই ঘটনাটি এভাবে চেপে গেল কেন? প্রশ্নটির সম্ভবত কোনো জবাব নেই!

সাকিবকে নিয়ে ওই নিউজটি করার পর দুই দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে ‘সাইবার লড়াই’ শুরু হয়। একে অপরকে যুক্তিপূর্ণ কথা থেকে শুরু করে কুৎসিত গালি পর্যন্ত প্রদান করেন। এছাড়া শুরু হয় ছবি বিকৃতি করে ট্রল করা। কিন্তু থেমে যায়নি এবেলা। আজ ২৪ সেপ্টেম্বর রবিবার আবারও বিদ্বেষমূলক একটি নিউজ ছাপায় সাইটটি। শিরোনামে দেওয়া হয় ‘কোহলিকে আবারও চরম অসম্মান, এবার সব মাত্রা ছাড়াল বাংলাদেশিরা’

স্রেফ দর্শক-সমর্থকদের পারস্পরিক কথাবার্তার ওপর নির্ভর করে এভাবে বিদ্বেষ ছড়ানোটা গ্রহণ করতে পারছেন না সচেতন মহল। এই বিদ্বেষ ছড়ানোর পেছনে আনন্দবাজার গোষ্ঠীর এই পত্রিকাটির আরও খারাপ কোনো উদ্দেশ্য লুকিয়ে আছে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন দুই দেশের সচেতন ক্রিকেটপ্রেমীরা।

© Copyright 2014-2018, All Rights Reserved ||| Powered By AnyNews24.Com || Developer By Abir-Group

%d bloggers like this:
www.scriptsell.net