যেভাবে অভিনয়ে এসেছেন মিমি, নুসরাত ও রুক্মিণী
 

ওপার বাংলার অন্যতম নায়িকা মিমি চক্রবর্তী, নুসরাত জাহান ও রুক্মিণী মৈত্র। তিন জনের একত্রে একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট হয়েছে। ছবিতে দেখা গেছে তিন জন কতটা আন্তরিক। প্রিয় নায়িকাদের এমন ছবি লুফে নিয়েছেন ভক্তরা। লাইক কমেন্ট আর সেয়ার। কোনটারই কমতি নেই যেন। নিজের অভিনয়ের যায়গা থেকে কেউই কম যায়না। তবে সব থেকে মজার বিষয় হচ্ছে এই তিন অভিনেত্রী সুপারস্টার দেবের প্রিয় বান্ধবী।

পাঠক আসুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক এই তিন অভিনেত্রী কিভাবে রঙ্গীন পর্দায় যায়গা করে নিলেন:-

মিমি চক্রবর্তী:
ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন অভিনেত্রী। গানের ওপারে ধারাবাহিকের ‘পুপে’ চরিত্রের মাধ্যমে সবার চোখে আসেন। মিমি চলচ্চিত্রে অভিনয় করার পূর্বে একজন মডেল ছিলেন। তিনি ফেমিনা মিস্‌ ইন্ডিয়াতে অংশগ্রহন করেন। তার অভিনয়ের শুরু চ্যাম্পিয়ন ছবিতে[৩], যদিও সে এই চলচ্চিত্রে গৌণ ভূমিকায় অভিনয় করে। তার ২য় আবির্ভাব গানের ওপারে ধারাবাহিকে। এই ধারাবাহিকের খ্যাতি তাকে আলোয় এনে দেয়। গানের ওপারের চিত্রনাট্য লেখে বিখ্যাত চলচ্চিত্রকার ঋতুপর্ণ ঘোষ। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এ ধারাবাহিক নির্মিত হয়। এই ধারাবাহিকে আরো অনেক বিখ্যাত ব্যক্তি অভিনয় করেন। ৭ই ডিসেম্বর, ২০১২ তারিখে মুক্তিপ্রাপ্ত বাপি বাড়ি যা চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তার অভিনয়ের যাত্রা শুরু।

মিমি অভিনীত ছবির সংখ্যা ১৪।

নুসরাত জাহান: 
ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। তাঁর প্রথম অভিনীত চলচ্চিত্র রাজ চক্রবর্তীর পরিচালনায় শত্রু। এই চলচ্চিত্রে তিনি জিতের বিপরীতে অভিনয় করেন। এই ছবিটি এসকে মুভিজের ব্যানারে মুক্তি পায়। এরপর তিনি খোকা 8২০, খিলাড়ি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। প্রতিটি ছবিই এসকে মুভিজের ব্যানারে মুক্তি পায়। এরমধ্যে রাজিব বিশ্বাস পরিচালিত সুপারস্টার অভিনেতা দেবের বিপরীতে অভিনীত খোকা ৪২০ চলচ্চিত্রটি অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়। এই ছবিতে আরো ছিলেন শুভশ্রী গাঙ্গুলী।

২০১০ সালে ফেয়ার ওয়ান মিস কলকাতা নামক একটি সৌন্দর্য প্রতিযোগীতায় বিজয়ী হন। তার সৌন্দর্যের কারণে তিনি মডেলিং-এ সুযোগ পান। এরপর তিনি জিতে্‌র বিপরীতে এবং রাজ চক্রবর্তীর পরিচালনায় শত্রু চলচ্চিত্রে অভিনয় করে পশ্চিম বাংলায় সুপরিচিত হন। এর প্রায় দুই বছর পর মুক্তি পায় দেবের বিপরীতে এবং রাজিব বিশ্বাস পরিচালিত তার দ্বিতীয় ছবি ‘খোকা ৪২০’। এই চলচ্চিত্রটি অত্যধিক জনপ্রিয়তা তাকে সাফল্যের অন্যতম শিখরে নিয়ে যায়। এরপর মুক্তি পায় অঙ্কুশ হাজরার বিপরীতে খিলাড়ি ছবিটি। তিনটি ছবিতেই এসকে মুভিজ প্রযোজনা করে। নুসরাত জাহান একের পর এক ব্লকবাস্টার দর্শকদের উপহার দিয়ে গেছেন।

নুসরাত অভিনীত ছবির সংখ্যা ১১।

রুক্মিণী মৈত্র:
ভারতীয় বাঙালি মডেল। তিনি বহু আঞ্চলীক, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পন্য ও ম্যাগাজিনে শুভেচ্ছা দূত হিসাবে কাজ করেছেন। এর মাধ্যমে তিনি নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছেন।রুক্মিণী মৈত্র-এর অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র মুক্তি পেতে চলেছে ২০১৭ সালে। রুক্মিনি মৈত্র ১৩ বছর বয়সেই মডেলিং -এর সঙ্গে যুক্ত হন।তার প্রতিটি বিজ্ঞাপনের চুক্তির পর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। সে আঞ্চলীক, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বহু পন্যে বিজ্ঞাপনের কাজ করেছেন।

যেমন- রিলায়েন্স, লাকমে, ভোডাফোন, সানসিল্ক, প্যারাচটি, টিটান, টাটা টি, রাডো, এলে, হারপের বাজার, ফেমিনা, রয়াল স্টাগ, পিতি চন্দ্র জুয়েলার্স ,ভিমা জুয়েলার্স, আজভা, সেনকো গোল্ড, ইস্পিনসাস, আইটিসি, বিগ বাজার এফবি, লাক্স, এমামি, এবং তিনি কাজ করেছেন ফ্যাশান ডিজাইনার – মাসাবা গুপ্তা, অনিতা ডুংরি, সুনিটা ভার্মা, দেব আর লিন, অঞ্জু মদি প্রভিতি ব্যক্তির সঙ্গে।

তিনি অতিতে বহু আঞ্চলীক ও জাতীয় চলচ্চিত্রে অভিনয়ের অনুরোদ পেয়েছেন।তিনি মডেলিং-এর জন্য চলচ্চিত্রে অভিনয় থেকে বিরত ছিলেন। বর্তমানে তিনি একটি বাংলা চলচ্চিত্র চাম্প-এ দেবের বিপরীতে অভিনয়ের দ্বারা চলচ্চিত্র জগতে পদার্পন করেন।

রুক্মিণী মৈত্র অভিনীত ছবির সংখ্যা ২।

যেভাবে অভিনয়ে এসেছেন মিমি, নুসরাত ও রুক্মিণী
 

ওপার বাংলার অন্যতম নায়িকা মিমি চক্রবর্তী, নুসরাত জাহান ও রুক্মিণী মৈত্র। তিন জনের একত্রে একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট হয়েছে। ছবিতে দেখা গেছে তিন জন কতটা আন্তরিক। প্রিয় নায়িকাদের এমন ছবি লুফে নিয়েছেন ভক্তরা। লাইক কমেন্ট আর সেয়ার। কোনটারই কমতি নেই যেন। নিজের অভিনয়ের যায়গা থেকে কেউই কম যায়না। তবে সব থেকে মজার বিষয় হচ্ছে এই তিন অভিনেত্রী সুপারস্টার দেবের প্রিয় বান্ধবী।

পাঠক আসুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক এই তিন অভিনেত্রী কিভাবে রঙ্গীন পর্দায় যায়গা করে নিলেন:-

মিমি চক্রবর্তী:
ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন অভিনেত্রী। গানের ওপারে ধারাবাহিকের ‘পুপে’ চরিত্রের মাধ্যমে সবার চোখে আসেন। মিমি চলচ্চিত্রে অভিনয় করার পূর্বে একজন মডেল ছিলেন। তিনি ফেমিনা মিস্‌ ইন্ডিয়াতে অংশগ্রহন করেন। তার অভিনয়ের শুরু চ্যাম্পিয়ন ছবিতে[৩], যদিও সে এই চলচ্চিত্রে গৌণ ভূমিকায় অভিনয় করে। তার ২য় আবির্ভাব গানের ওপারে ধারাবাহিকে। এই ধারাবাহিকের খ্যাতি তাকে আলোয় এনে দেয়। গানের ওপারের চিত্রনাট্য লেখে বিখ্যাত চলচ্চিত্রকার ঋতুপর্ণ ঘোষ। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এ ধারাবাহিক নির্মিত হয়। এই ধারাবাহিকে আরো অনেক বিখ্যাত ব্যক্তি অভিনয় করেন। ৭ই ডিসেম্বর, ২০১২ তারিখে মুক্তিপ্রাপ্ত বাপি বাড়ি যা চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তার অভিনয়ের যাত্রা শুরু।

মিমি অভিনীত ছবির সংখ্যা ১৪।

নুসরাত জাহান: 
ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। তাঁর প্রথম অভিনীত চলচ্চিত্র রাজ চক্রবর্তীর পরিচালনায় শত্রু। এই চলচ্চিত্রে তিনি জিতের বিপরীতে অভিনয় করেন। এই ছবিটি এসকে মুভিজের ব্যানারে মুক্তি পায়। এরপর তিনি খোকা 8২০, খিলাড়ি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। প্রতিটি ছবিই এসকে মুভিজের ব্যানারে মুক্তি পায়। এরমধ্যে রাজিব বিশ্বাস পরিচালিত সুপারস্টার অভিনেতা দেবের বিপরীতে অভিনীত খোকা ৪২০ চলচ্চিত্রটি অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়। এই ছবিতে আরো ছিলেন শুভশ্রী গাঙ্গুলী।

২০১০ সালে ফেয়ার ওয়ান মিস কলকাতা নামক একটি সৌন্দর্য প্রতিযোগীতায় বিজয়ী হন। তার সৌন্দর্যের কারণে তিনি মডেলিং-এ সুযোগ পান। এরপর তিনি জিতে্‌র বিপরীতে এবং রাজ চক্রবর্তীর পরিচালনায় শত্রু চলচ্চিত্রে অভিনয় করে পশ্চিম বাংলায় সুপরিচিত হন। এর প্রায় দুই বছর পর মুক্তি পায় দেবের বিপরীতে এবং রাজিব বিশ্বাস পরিচালিত তার দ্বিতীয় ছবি ‘খোকা ৪২০’। এই চলচ্চিত্রটি অত্যধিক জনপ্রিয়তা তাকে সাফল্যের অন্যতম শিখরে নিয়ে যায়। এরপর মুক্তি পায় অঙ্কুশ হাজরার বিপরীতে খিলাড়ি ছবিটি। তিনটি ছবিতেই এসকে মুভিজ প্রযোজনা করে। নুসরাত জাহান একের পর এক ব্লকবাস্টার দর্শকদের উপহার দিয়ে গেছেন।

নুসরাত অভিনীত ছবির সংখ্যা ১১।

রুক্মিণী মৈত্র:
ভারতীয় বাঙালি মডেল। তিনি বহু আঞ্চলীক, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পন্য ও ম্যাগাজিনে শুভেচ্ছা দূত হিসাবে কাজ করেছেন। এর মাধ্যমে তিনি নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছেন।রুক্মিণী মৈত্র-এর অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র মুক্তি পেতে চলেছে ২০১৭ সালে। রুক্মিনি মৈত্র ১৩ বছর বয়সেই মডেলিং -এর সঙ্গে যুক্ত হন।তার প্রতিটি বিজ্ঞাপনের চুক্তির পর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। সে আঞ্চলীক, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বহু পন্যে বিজ্ঞাপনের কাজ করেছেন।

যেমন- রিলায়েন্স, লাকমে, ভোডাফোন, সানসিল্ক, প্যারাচটি, টিটান, টাটা টি, রাডো, এলে, হারপের বাজার, ফেমিনা, রয়াল স্টাগ, পিতি চন্দ্র জুয়েলার্স ,ভিমা জুয়েলার্স, আজভা, সেনকো গোল্ড, ইস্পিনসাস, আইটিসি, বিগ বাজার এফবি, লাক্স, এমামি, এবং তিনি কাজ করেছেন ফ্যাশান ডিজাইনার – মাসাবা গুপ্তা, অনিতা ডুংরি, সুনিটা ভার্মা, দেব আর লিন, অঞ্জু মদি প্রভিতি ব্যক্তির সঙ্গে।

তিনি অতিতে বহু আঞ্চলীক ও জাতীয় চলচ্চিত্রে অভিনয়ের অনুরোদ পেয়েছেন।তিনি মডেলিং-এর জন্য চলচ্চিত্রে অভিনয় থেকে বিরত ছিলেন। বর্তমানে তিনি একটি বাংলা চলচ্চিত্র চাম্প-এ দেবের বিপরীতে অভিনয়ের দ্বারা চলচ্চিত্র জগতে পদার্পন করেন।

রুক্মিণী মৈত্র অভিনীত ছবির সংখ্যা ২।

Leave a Reply

© Copyright 2014-2018, All Rights Reserved ||| Powered By AnyNews24.Com || Developer By Abir-Group

%d bloggers like this:
www.scriptsell.net