‘পৃথিবী তোমার আমার’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে পূর্ণিমাকে পেয়েছিল দর্শক। অভিনয় প্রতিভা দিয়ে তিনি জয় করেছেন দর্শক হৃদয়, সেই সঙ্গে অর্জন করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও। অভিনয়ের পাশাপাশি পূর্ণিমা যে দক্ষ নাচ"/>

পূর্ণিমা‘পৃথিবী তোমার আমার’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে পূর্ণিমাকে পেয়েছিল দর্শক। অভিনয় প্রতিভা দিয়ে তিনি জয় করেছেন দর্শক হৃদয়, সেই সঙ্গে অর্জন করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও। অভিনয়ের পাশাপাশি পূর্ণিমা যে দক্ষ নাচিয়ে সেটাও প্রমাণিত। তবে এবার পূর্ণিমাকে পাওয়া গেল একেবারে নতুন এক পরিচয়ে। ইন্সটাগ্রামে হয়তো শখের বশেই আপলোড করেছিলেন তাঁর কণ্ঠে গীত ‘মে তেরে ইশক’ গানটি। কিন্তু সে গান শুনে বিভিন্ন তারকার পোস্ট করা মন্তব্য পূর্ণিমার গায়ে লাগিয়ে দিয়েছে কণ্ঠশিল্পীর তকমা।
পূর্ণিমার কণ্ঠে গান শুনে সুবর্ণা মুস্তাফা লিখেছেন, ‘বাহ্ বাহ্‌’। মডেল ও অভিনয়শিল্পী নোবেল লিখেন, ‘নাচ থেকে গান। দারুণ বৈচিত্র্যপূর্ণ। এটা ধরে রাখা উচিত।’ পূর্ণিমার গান শুনে সংগীতশিল্পী আঁখি আলমগীর লিখেছেন, ‘ওরে বাবা, ভালো গাও তো। দারুণ।’ পলাশ লিখেছেন, ‘অসাধারণ। খুব ভালো লাগল। অভিনয়শিল্পী নাদিয়া লিখেছেন ‘খুবই চমৎকার।’
পূর্ণিমার কণ্ঠে গান শুনে আরও অনেকেই নানা ধরনের মন্তব্য করেছেন। যাঁকে ঘিরে সবার এমন মন্তব্য সেই পূর্ণিমার কাছে কেমন লেগেছে জানতে চাইলে প্রথম আলোকে বললেন, ‘প্রশংসা শুনতে কার না ভালো লাগে বলেন?
ভালোই লাগছে। বেশ ভালো। এমনিতে আমি গুণগুণ করে গান গাই। এই প্রথম আমার কণ্ঠে কোনো গানের কিছু অংশের ভিডিও আপলোড করলাম। পুরোটাই শখের বশে গাওয়া। সবাই এমনভাবে প্রশংসা করছেন, আমি সত্যিই আপ্লুত।’
‘মে তেরে ইশক’ গানটি প্রথম সবাই শুনতে পেয়েছিলেন লতা মুঙ্গেশকরের কণ্ঠে। ১৯৭৩ মুক্তি পাওয়া ‘লোফার’ ছবিতে গানটি ব্যবহৃত হয়েছে।

পূর্ণিমা‘পৃথিবী তোমার আমার’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে পূর্ণিমাকে পেয়েছিল দর্শক। অভিনয় প্রতিভা দিয়ে তিনি জয় করেছেন দর্শক হৃদয়, সেই সঙ্গে অর্জন করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও। অভিনয়ের পাশাপাশি পূর্ণিমা যে দক্ষ নাচিয়ে সেটাও প্রমাণিত। তবে এবার পূর্ণিমাকে পাওয়া গেল একেবারে নতুন এক পরিচয়ে। ইন্সটাগ্রামে হয়তো শখের বশেই আপলোড করেছিলেন তাঁর কণ্ঠে গীত ‘মে তেরে ইশক’ গানটি। কিন্তু সে গান শুনে বিভিন্ন তারকার পোস্ট করা মন্তব্য পূর্ণিমার গায়ে লাগিয়ে দিয়েছে কণ্ঠশিল্পীর তকমা।
পূর্ণিমার কণ্ঠে গান শুনে সুবর্ণা মুস্তাফা লিখেছেন, ‘বাহ্ বাহ্‌’। মডেল ও অভিনয়শিল্পী নোবেল লিখেন, ‘নাচ থেকে গান। দারুণ বৈচিত্র্যপূর্ণ। এটা ধরে রাখা উচিত।’ পূর্ণিমার গান শুনে সংগীতশিল্পী আঁখি আলমগীর লিখেছেন, ‘ওরে বাবা, ভালো গাও তো। দারুণ।’ পলাশ লিখেছেন, ‘অসাধারণ। খুব ভালো লাগল। অভিনয়শিল্পী নাদিয়া লিখেছেন ‘খুবই চমৎকার।’
পূর্ণিমার কণ্ঠে গান শুনে আরও অনেকেই নানা ধরনের মন্তব্য করেছেন। যাঁকে ঘিরে সবার এমন মন্তব্য সেই পূর্ণিমার কাছে কেমন লেগেছে জানতে চাইলে প্রথম আলোকে বললেন, ‘প্রশংসা শুনতে কার না ভালো লাগে বলেন?
ভালোই লাগছে। বেশ ভালো। এমনিতে আমি গুণগুণ করে গান গাই। এই প্রথম আমার কণ্ঠে কোনো গানের কিছু অংশের ভিডিও আপলোড করলাম। পুরোটাই শখের বশে গাওয়া। সবাই এমনভাবে প্রশংসা করছেন, আমি সত্যিই আপ্লুত।’
‘মে তেরে ইশক’ গানটি প্রথম সবাই শুনতে পেয়েছিলেন লতা মুঙ্গেশকরের কণ্ঠে। ১৯৭৩ মুক্তি পাওয়া ‘লোফার’ ছবিতে গানটি ব্যবহৃত হয়েছে।

About the author

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copyright © 2010-2019