শিল্পা শেঠি, পরিণীতি চোপড়া ও ক্যাটরিনা কাইফ। ছবি: সংগৃহীত। 

পৃথিবীতে এমন অনেক অজানা কারণ আছে, যার মধ্যে একটি হচ্ছে একজনের সঙ্গে আরেকজনের চেহারা হুবহু মিলে যাওয়া। তারকাদের মধ্যেও পাওয়া যায় এমন অসংখ্য মিল। এতোদিন হলিউড তারকাদের সঙ্গে বলিউড তারকাদের চেহারার মিল নিয়ে অনেক ধরনের সংবাদ উপস্থাপন করা হয়েছিল। কিন্তু জানেন কী, বলিউডেই একই রকম দেখতে দুইজন তারকা উপস্থিতি রয়েছে, যাদের ইন্ডাস্ট্রিতে তেমন আহামরি কোন প্রয়োজন নেই। আসুন এক নজরে দেখে নেয়া যাক বলিউডের নায়ক-নায়িকাদের ‘ডুপ্লিকেট’ আরেক তারকাকে!

স্নেহা উল্লাল

ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে সাথে সালমানের আলোড়ন সৃষ্টিকারী ব্রেকআপের পরে সালমানের হাত ধরে বলিউডে পা রাখেন স্নেহা উল্লাল। ‘লাকী- নো টাইম ফর লাভ’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে ক্যারিয়ার শুরু করেন ঐশ্বরিয়া সাদৃশ্য এই নায়িকা। কিন্তু কালের গর্ভে তিনি হারিয়ে যান বলিউড সিনেমা থেকে। কারণ বলিউডে দ্বিতীয় ঐশ্বরিয়ার প্রয়োজন নেই।

জারিন খান

সালমান খানের সাথে ক্যাটরিনার ব্রেকআপের পর পরই সালমান তার নতুন সিনেমা ‘বীর’ এ জারিন খানকে নায়িকা হিসেবে এনে আবারো সবাইকে চমকে দেন। আর চমকে যাওয়ার কারণ ছিল জারিন খানের সাথে ক্যাটরিনার চেহারার অস্বাভাবিক রকমের মিল! তবে দুজনের মধ্যে পার্থক্য অবশ্যই আছে। এক হচ্ছে, ক্যাটরিনা হিন্দি বলতে পারেন না, কিন্তু তিনি অভিনয়ে পটু। অপর দিকে, জারিন ভালো হিন্দি বলতে পারলেও অভিনয়ে অত্যন্ত দুর্বল। তাই ইন্ডাস্ট্রিতে দ্বিতীয় ক্যাটরিনার প্রয়োজন নেই।

মানারা চোপড়া

পরিণীতি চোপড়ার বোন মানারা চোপড়া। তাদের চেহারা হুবহু এক, যে কারণে দুজনকে দেখে দর্শক বিভ্রান্ত হতে বাধ্য। পরিণীতি সিনেমায় কাজ করছেন, অপরদিকে মানারা বলিউডে অভিষেকের জন্য অপেক্ষা করছেন। সময় বলবে, এই দুই বোনের মধ্যে কে টিকে থাকবে শেষ অবধি।

শমিতা শেঠি

তিনি শিল্পা শেঠির ছোটবোন। বলিউডের কয়েকটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি। দুই বোন একসঙ্গে একটি সিনেমায় অভিনয়ও করেছিলেন। কিন্তু শিল্পার সামনে শমিতা টিকে থাকতে পারেন নি। তাই চলচ্চিত্রকে একপ্রকার বিদায় জানিয়েছেন ‘মোহাব্বতে’ নায়িকা।

হারমান বাওয়েজা

‘লাভস্টোরি ২০৫০’ এর মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন হারমান। হারমানের চেহারার সাথে হৃতিকের চেহারার অস্বাভাবিক মিল লক্ষ্য করেন দর্শকরা। হারমান নাচতেও পারেন হৃতিকের মত। এরপর তিনি প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সঙ্গে ‘হোয়াটস ইয়োর রাশি’তে অভিনয় করেন। কিন্তু বলিউডে যেহেতু হৃতিক রয়েছেনই, তাই হারিয়ে গেছেন হারমান।

সনু সুদ

একদিকে অমিতাভ বচ্চনের বয়স বাড়ছে, অপরদিকে বলিউডে সাফল্যের সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠছেন সনু সুদ। তাদের দুজনের চেহারায় তেমন কোন পার্থক্য নেই বয়স ছাড়া। বলিউড ছাড়াও জ্যাকি চ্যানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সিনেমায় অভিনয় করে আলোচিত হয়েছেন সনু সুদ। তবে এই নায়কের ইন্ডাস্ট্রিতে প্রয়োজন আছে। কারণ এই অভিনেতা অমিতাভের সমতুল্য না হলেও তিনি মেধাবী তারকাদের একজন।

সূত্র: দেশি মার্টিনি

শিল্পা শেঠি, পরিণীতি চোপড়া ও ক্যাটরিনা কাইফ। ছবি: সংগৃহীত। 

পৃথিবীতে এমন অনেক অজানা কারণ আছে, যার মধ্যে একটি হচ্ছে একজনের সঙ্গে আরেকজনের চেহারা হুবহু মিলে যাওয়া। তারকাদের মধ্যেও পাওয়া যায় এমন অসংখ্য মিল। এতোদিন হলিউড তারকাদের সঙ্গে বলিউড তারকাদের চেহারার মিল নিয়ে অনেক ধরনের সংবাদ উপস্থাপন করা হয়েছিল। কিন্তু জানেন কী, বলিউডেই একই রকম দেখতে দুইজন তারকা উপস্থিতি রয়েছে, যাদের ইন্ডাস্ট্রিতে তেমন আহামরি কোন প্রয়োজন নেই। আসুন এক নজরে দেখে নেয়া যাক বলিউডের নায়ক-নায়িকাদের ‘ডুপ্লিকেট’ আরেক তারকাকে!

স্নেহা উল্লাল

ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে সাথে সালমানের আলোড়ন সৃষ্টিকারী ব্রেকআপের পরে সালমানের হাত ধরে বলিউডে পা রাখেন স্নেহা উল্লাল। ‘লাকী- নো টাইম ফর লাভ’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে ক্যারিয়ার শুরু করেন ঐশ্বরিয়া সাদৃশ্য এই নায়িকা। কিন্তু কালের গর্ভে তিনি হারিয়ে যান বলিউড সিনেমা থেকে। কারণ বলিউডে দ্বিতীয় ঐশ্বরিয়ার প্রয়োজন নেই।

জারিন খান

সালমান খানের সাথে ক্যাটরিনার ব্রেকআপের পর পরই সালমান তার নতুন সিনেমা ‘বীর’ এ জারিন খানকে নায়িকা হিসেবে এনে আবারো সবাইকে চমকে দেন। আর চমকে যাওয়ার কারণ ছিল জারিন খানের সাথে ক্যাটরিনার চেহারার অস্বাভাবিক রকমের মিল! তবে দুজনের মধ্যে পার্থক্য অবশ্যই আছে। এক হচ্ছে, ক্যাটরিনা হিন্দি বলতে পারেন না, কিন্তু তিনি অভিনয়ে পটু। অপর দিকে, জারিন ভালো হিন্দি বলতে পারলেও অভিনয়ে অত্যন্ত দুর্বল। তাই ইন্ডাস্ট্রিতে দ্বিতীয় ক্যাটরিনার প্রয়োজন নেই।

মানারা চোপড়া

পরিণীতি চোপড়ার বোন মানারা চোপড়া। তাদের চেহারা হুবহু এক, যে কারণে দুজনকে দেখে দর্শক বিভ্রান্ত হতে বাধ্য। পরিণীতি সিনেমায় কাজ করছেন, অপরদিকে মানারা বলিউডে অভিষেকের জন্য অপেক্ষা করছেন। সময় বলবে, এই দুই বোনের মধ্যে কে টিকে থাকবে শেষ অবধি।

শমিতা শেঠি

তিনি শিল্পা শেঠির ছোটবোন। বলিউডের কয়েকটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি। দুই বোন একসঙ্গে একটি সিনেমায় অভিনয়ও করেছিলেন। কিন্তু শিল্পার সামনে শমিতা টিকে থাকতে পারেন নি। তাই চলচ্চিত্রকে একপ্রকার বিদায় জানিয়েছেন ‘মোহাব্বতে’ নায়িকা।

হারমান বাওয়েজা

‘লাভস্টোরি ২০৫০’ এর মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন হারমান। হারমানের চেহারার সাথে হৃতিকের চেহারার অস্বাভাবিক মিল লক্ষ্য করেন দর্শকরা। হারমান নাচতেও পারেন হৃতিকের মত। এরপর তিনি প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সঙ্গে ‘হোয়াটস ইয়োর রাশি’তে অভিনয় করেন। কিন্তু বলিউডে যেহেতু হৃতিক রয়েছেনই, তাই হারিয়ে গেছেন হারমান।

সনু সুদ

একদিকে অমিতাভ বচ্চনের বয়স বাড়ছে, অপরদিকে বলিউডে সাফল্যের সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠছেন সনু সুদ। তাদের দুজনের চেহারায় তেমন কোন পার্থক্য নেই বয়স ছাড়া। বলিউড ছাড়াও জ্যাকি চ্যানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সিনেমায় অভিনয় করে আলোচিত হয়েছেন সনু সুদ। তবে এই নায়কের ইন্ডাস্ট্রিতে প্রয়োজন আছে। কারণ এই অভিনেতা অমিতাভের সমতুল্য না হলেও তিনি মেধাবী তারকাদের একজন।

সূত্র: দেশি মার্টিনি

Leave a Reply

© Copyright 2014-2018, All Rights Reserved ||| Powered By AnyNews24.Com || Developer By Abir-Group

%d bloggers like this:
www.scriptsell.net